1. sylhetmohanagarbarta@gmail.com : সিলেট মহানগর বার্তা :
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৪:০৮ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
জরুরী নিয়োগ চলছে দেশের প্রতিটি বিভাগীয় প্রতিনিধি, জেলা,উপজেলা, স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস ও বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি বা সাংবাদিক নিয়োগ চলছে।
প্রধান খবর:
মানবিক সাহায্যের আবেদন বাঁচতে চায় ৮ বছর বয়সী শিশু রিয়া মনি সাংবাদিক গোলজারের মায়ের ইন্তেকাল, দাফন সম্পন্ন,আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া কবি মুহিত চৌধুরীর জন্মদিন আজ ওসমানী হাসপাতালের কর্মচারীরা ওয়ার্ড মাষ্টার রওশন হাবিব ও ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারী আব্দুল জব্বারের হাতে জিম্মি সাংবাদিক তাওহীদকে প্রাণনাশের হুমকিতে অনলাইন প্রেসক্লাবের উদ্বেগ সিলেটে সাংবাদিক তাওহীদুল ইসলামকে প্রাণনাশের হুমকি, থানায় জিডি লিডিং ইউনিভার্সিটি থেকে পেশাগত অসদাচরণের দায়ে স্থপতি রাজন দাস চাকুরিচ্যুত নবগঠিত ২৮, ২৯, ৩০,৪০, ৪১ ও ৪২ নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও যুগ্ম আহবায়কের নাম ঘোষণা গোলাপগঞ্জ উপজেলার উন্নয়ন মেলার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান গেয়ে মাতিয়েছেন হিল্লোল শর্মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা’র ৭৭তম জন্মদিন উপলক্ষে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের কর্মসূচী

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার হোসেন্দীর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটির বেহাল অবস্থা।

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২০৪ বার পড়া হয়েছে

মো:হৃদয় হোসেন
বিশেষ প্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দীর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি দিকে নেই কোনো চোখ সির্ভিল সার্জেন্টের।

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি দীর্ঘদিন যাবৎ জনগণের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে আসিতেছে।

গজারিয়ার ইতিহাসে এটিই ১ম চিকিৎসা কেন্দ্র।চিকিৎসা কেন্দ্র।এই উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি হতে প্রতিদিন দুই থেকে তিনশ রোগীর প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে থাকে।
এখানে এই উপস্বাস্থ্যটির স্মৃতি রক্ষার স্বার্থে মানসম্পন্ন হাসপাতাল করা দরকার।

উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটির নিজস্ব মালিকানার থাকা সত্বেও উপজেলা সহকারী ভূমি কমিশনার জায়গাটি সীমানা প্রাচীর নির্ধারণের নেই কোনো উদ্যোগ।

উপজেলা স্বাস্থ্য পরিচালক মহোদয়গণ বারবার জায়গাটির সীমানা প্রাচীর নির্ধারণের জন্য দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের বরাবর পত্র প্রেরণ করার পরেও নেই কোনো তৎপরতা।

এই উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটির উওরশরী জনাব তপন চৌদ্দোরি জানান যে,
এই উপস্বাস্থ ্য চিকিৎসা কেন্দ্রটি তার দাদার আমলে তৈরি,দাদা তার নিজস্ব জায়গায় জনগনের চিকিৎসার জন্য বানিয়েছেন। যার সি এস, এস এ, আর এস এখনো আমাদের নামে। আব্বা বহু বার বহু সিভিল সার্জন এর সাথে কথা বলেছে এটাকে সুন্দর ভাবে অবকাঠামো উন্নয়ন করার জন্য।

কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।
আব্বা বলেছে আমি জায়গা লিখে দেই শুধু আমার বাবার নামটা রাখিয়েন ।আজ প্রর্যন্ত কাজ করি করি করেও কোন কাজ করেন নাই।

তাই এবার বি এস রেকর্ডের সময় আমাদের বাড়িতে বসেই এই জায়গার ৪.৪৪ শতাংশ জায়গা উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের নামে রেকর্ড করিয়েছি। যাতে কাজ হয় কিন্তু তারপরও কোন উদ্যোগ নাই। করোনার আগে উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেব একবার ফোন দিয়েছিলো বলেছিলো সীমানা করতে আসবে।সেই ফোন করা প্রর্যন্ত ঐ শেষ।যাই হোক আমি চাই আমার দাদার স্মৃতি এই উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি সুন্দর ভাবে গড়ে উঠে এবং গরীব জনগণের চিকিৎসা উৎস হয়।তিনি আরো বলেন যত রকম সহোযোগিতা লাগে আমরা করবো ইনশাআল্লাহ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: এন আর